Travel

প্রেমিকাকে নিয়ে ঘুরতে গেলে যা মাথায় রাখবেন দেখে নিন আপনার ভালো হবে।

প্রেমিকাকে নিয়ে ঘুরতে গেলে যা মাথায় রাখবেন দেখে নিন আপনার ভালো হবে।

  • কক্সবাজার বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ট্যুরিস্ট ডেস্টিনেশন। কম বেশি সবাই এখানে ছুটি কাটাতে যান। এছাড়াও হানিমুনের জন্য এদেশের মানুষের প্রথম পছন্দ কক্সবাজার।
  • তবে এখানে নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে অনেকে চিন্তিত থাকেন। যুগলদের জন্য ভালো মানের হোটেল-রিসোর্ট (৩/৪/৫ তারকা মানের) নিরাপদ, বিশেষ করে শহর থেকে একটু দূরেরগুলো হলে ভালো হয়। তারা আপনার গোপনীয়তা এবং নিরাপত্তার বিষয়টি গুরুত্ব দেয়। তবে এজন্য আপনাকে একটু বেশি টাকা খরচ করতে হবে।
  • সী বিচে অনেক ফটোগ্রাফার থাকে। এদের কাছে আপনি টাকা দিয়ে ছবি তুলতে পারবেন। কিন্তু আমার পরামর্শ হচ্ছে এদের দিয়ে ছবি তুলাবেন না। কারণ এরা আপনার চাহিদার চেয়ে বেশি ছবি তুলে অতিরিক্ত টাকা দাবি করবে। পাশাপাশি আপনার অজান্তেই কিছু ছবি রেখে দিবে যা তারা কোন উল্টাপাল্টা কাজে ব্যবহার করতে পারে।
  • আর দয়া করে গার্লফ্রেন্ড কে বিয়ে করে তারপর ঘুরতে যান। সাথে কাবিননামার ছবি তুলে পারলে ফটোকপি সাথে রাখবেন। কারণ, আমাদের কিছু অতি উৎসাহী পুলিশ আছে যারা কক্সবাজারে কাপলদের হয়রানি করে এবং ‘অসামাজিক কার্যকলাপ’ এর নামে ফাঁসিয়ে দেয়। কাবিননামার ছবি বা ফটোকপি থাকলে পুলিশি হয়রানির ক্ষেত্রে তা আপনার জন্য রক্ষাকবচ হিসেবে কাজ করতে পারে। এছাড়াও পুলিশি ঝামেলার কথা চিন্তা করে অধিকাংশ হোটেল অবিবাহিত কাপলদের রুম ভাড়া দিতে চায় না। তবে তারকা মানের হোটেলে পাওয়া যেতেও পারে, তবে তা চেষ্টা না করাই ভালো। সাধারণত কেউ কাপলদের জিজ্ঞাসা করে না তারা আদৌ বৈধ স্বামী-স্ত্রী কি না। তারপরও বিবাহিতদের সাবধানতা অবলম্বন করাটা জরুরি।
  • প্রেমিকাকে নিয়ে ঘুরতে গেলে যা মাথায় রাখবেন দেখে নিন আপনার ভালো হবে।
    প্রেমিকাকে নিয়ে ঘুরতে গেলে যা মাথায় রাখবেন দেখে নিন আপনার ভালো হবে।
  • যখন কেউ হুটহাট করেই কারও জীবনে চলে আসে এবং সেই ব্যক্তির প্রিয় মানুষ হয়ে ওঠে, তাদেরকে কখনো যেতে দিও না কারণ তাদেরকে আপনার জীবনে হয়তো কোন এক বিশেষ কারণেই পাঠানো হয়েছে।
  • আমাদের জীবনে সমস্যার শেষ নেই। সম্পর্কে থাকা কিন্তু সহজ সরল বিষয় নয়। কিন্তু তাও মানুষ সম্পর্কে থাকতে চান। কারণ মানুষ বুঝতে পারেন যে সম্পর্কে থাকলে অনেক সমস্যারই সমাধান করা সম্ভব হবে। এমনকী হাসিখুশিতেই একসঙ্গে কাটিয়ে দেওয়া যাবে জীবন। তাই তো পৃথিবীর প্রতি কোণায় এখনও মানুষ ভালোবাসে। এর মাধ্যমেই সমস্যাকে এড়িয়ে যাওয়া হয় সম্ভব।
  • এবার ভালোবাসার সম্পর্ক থাকলে অনেক অভিজ্ঞতা জীবনে আসবে। যা হয়তো কোনও দিনও জীবনে ছিল না, এমন বহু বিষয় থাকবে। এভাবেই নিত্য নতুন স্বাদ আস্বাদ করতে করতেই জীবনের প্রতি পদে এগিয়ে যাওয়া যাবে। তবেই তো আসবে জীবনের স্বার্থকতা। নিজের মতো করে এগিয়ে যেতে পারবে ভালোবাসার সম্পর্ক।
  • ভালোবাসার সম্পর্কে একে অপরের সঙ্গে দেখা করা আবশ্যক। তাই কাছেপিঠে ঘুরতে যাওয়া তো লেগেই থাকে। কিন্তু সমাজের গঠন এখন বদলে গিয়েছে। নিজের মতো করেই মানুষ এখন ভাবতে পারেন। ফলে জীবন এখন অন্য পথের পথিক হয়ে গিয়েছে। এক্ষেত্রে এখন মানুষ সঙ্গীকে নিয়ে সফরে বেরিয়ে পড়ছেন। বড়সড় ট্যুর করা চলছে।
  • এদিকে এভাবে ট্যুর আপনি করতেই পারেন। তবে সেই ট্যুর করার সময় কয়েকটি বিষয় অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে। এভাবেই সমস্যাকে পেরিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে। তাই চিন্তার কোনও কারণ নেই।

প্রেমিকাকে নিয়ে ঘুরতে গেলে যা মাথায় রাখবেন:

​ঠিকমতো প্ল্যান করুন: যে কোনও জায়গায় বেড়াতে যাওয়ার আগে ঠিকমতো প্ল্যান করে নেওয়া জরুরি। কোথায় যাবেন, এটা আগে থেকেই ঠিক করে নিতে হবে। আর এখানে কোনও একজনের মত থাকলে হবে না। এক্ষেত্রে দুজনের মতই যাতে থাকতে পারে সেই দিকটা নিয়ে ভাবতে হবে। তাই প্ল্যান ঠিক করার আগে এই বিষয়টা নিয়ে কথা বলা দরকার।

​বাজেট ঠিক করুন: কোথায় ঘুরতে গেলে বাজেট অবশ্যই রাখতে হবে। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় যে শুধু বাজেটের ভুলে অনেকে ঠিকমতো ঘুরতে যেতে পারছেন না। তাঁরা ঘুরতে গিয়েও ঝামেলায় পড়েন। তখন সঙ্গীর সঙ্গে বোঝাপড়ায় ভুল হয়ে যেতে পারে। তাই ভুলটা অবশ্যই আপনাকে এড়িয়ে যেতে হবে। তবেই সমস্যার করা যেতে পারে সমাধান।

​হোটেল ভালো হতে হবে: হোটেল ভালো হওয়া দরকার। এক্ষেত্রে সিকিউরিটি যাতে ভালো থাকে, এই বিষয়টা সবার প্রথমে নিশ্চিত করতে হবে। কারণ এই সিকিউরিটির অভাবে অনেক ক্ষেত্রে দেখা দিতে পারে সমস্যা। তাই সতর্কতা খুবই জরুরি। এক্ষেত্রে হোটেল ঠিক করার আগে তার রেটিং সম্পর্কে অবশ্যই জেনে নিন। তবেই আপনি সেখানে নিশ্চিন্তে থাকতে পারবেন। অন্যথায় সমস্যা তৈরি হতে পারে।

​ঘুরতে হবে: অনেকেই ঘর কুনো হয়ে থাকেন। এবার এই মানুষগুলি ঘুরতে গিয়েও বসে থাকেন ঘরে। কিন্তু এমনটা করলে চলবে না। কারণ আপনারা ঘুরতে এসেছেন মশাই। এবার এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে শুধু হোটেলে বসে থাকলে ঘুরতে যাওয়াটাই মাটি। তাই প্রতিটি মানুষকে অবশ্যই ঘুরতে যেতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি ঘুরতে না গেলে সঙ্গীর (Partner) মন খারাপ হয়ে যেতে পারে।

​আনন্দ করুন: এই সময়টা কিন্তু ফিরে আসবে না। এটা এখানেই শেষ হয়ে যাবে। তাই স্মৃতি আপনাকে তৈরি করে নিতেই হবে। এক্ষেত্রে আপনি স্মৃতি তৈরি করে নিতে পারলেই বেশকিছু সমস্যাকে এড়়িয়ে যাওয়া যায়। তাই চিন্তার কোনও কারণ নেই। বরং দু’জনে মিলে একে অপরের সঙ্গে কাটিয়ে দিন সময়টা। বাকি জীবন ভালো কাটবে।

 

5/5 - (2 votes)

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button