Day

শেখ রাসেল দিবস কবে পালিত হয় | শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে বক্তব্য

শেখ রাসেল দিবস কবে পালিত হয় এই সম্পর্কে আপনাদের বিস্তারিত জানাতে এই আরর্টিকেলটি তৈরি করা হয়েছে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী যথাযথ মর্যাদায় প্রতিবছর ১৮ই অক্টোবর ‘শেখ রাসেল দিবস’ পালন করা হয়। ২০২১ সালের ১৮ অক্টোবর প্রথম বারের মতো পালিত হয় শেখ রাসেল দিবস। বাংলাদেশ সরকার কবে ১৮ অক্টোবর তারিখে শেখ রাসেল দিবস হিসেবে ঘোষণা করেন।

শেখ রাসেল দিবস কবে পালিত হয় | শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে বক্তব্য

শেখ রাসেল দিবস কবে

শেখ রাসেল তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের ঢাকা অঞ্চলের ধানমন্ডিতে ৩২ নম্বর ভবনে বাংলাদেশের ইতিহাসে হাজার বছরের মধ্যে বাংলাদেশের জন্ম নেওয়া মহান নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র ছিলেন শেখ রাসেল। ১৯৬৪ সালের ১৮ই অক্টোবর শেখ রাসেল ঢাকার ঐতিহাসিক বঙ্গবন্ধু ভবনে জন্মগ্রহণ করেন।

শেখ রাসেল প্রাথমিক জীবনঃ

বঙ্গবন্ধু তাঁর প্রিয় লেখক খ্যাতিমান দার্শনিক ও নোবেল বিজয়ী ব্যক্তিত্ব বার্ট্রান্ড রাসেলের নামানুসারে পরিবারের নতুন সদস্যের নাম রাখেন ‘রাসেল ।

এই নামকরণে মা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। শৈশব থেকেই দুরন্ত প্রাণবন্ত রাসেল ছিলেন পরিবারের সবার অতি আদরের।

পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে রাসেল সর্বকনিষ্ঠ। ভাই-বোনের মধ্যে অন্যরা হলেন বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে মুক্তিবাহিনীর অন্যতম সংগঠক শেখ কামাল, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা শেখ জামাল এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতিবিদ শেখ রেহানা।

কত সালে থেকে শেখ রাসেল দিবস পালন করা হচ্ছে?

প্রথমবারের মতো ১৮ অক্টোবর রোজ সোমবার ২০২১ সালে ‘শেখ রাসেল দীপ্ত জয়োল্লাস, অদম্য আত্মবিশ্বাস এ প্রতিপাদ্যে নিয়ে ‘ক’শ্রেণির জাতীয় দিবস হিসেবে জাতীয়ভাবে দেশব্যাপী জেলা-উপজেলা এবং বিদেশস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসসমূহে যথাযথ মর্যাদায় উদযাপিত হওয়া শুরু হয় শেখ রাসেল দিবস।

শেখ রাসেল দিবস ‘ক’ শ্রেণিভুক্ত দিবস হিসেবে পালনের বিষয়ে অনুমোদন দেওয়া হয় ২৩শে আগস্ট ২০২১ সালে বাংলাদেশের মন্ত্রিসভার বৈঠকে।

এরপর ২৬ শে আগস্ট ২০২১ সালে তা গেজেট আকারে প্রকাশ করা হয়। এবং ঘোষণা করা হয় প্রতিবছর ১৮ই অক্টোবর যথাযোগ্য মর্যাদায় রাষ্ট্রীয়ভাবে পালন করা হবে শেখ রাসেল দিবস।

শেখ রাসেলের জন্মদিন কবে?

১৮ অক্টোবর ২০২৩ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের জন্মদিন। ১৯৬৪ সালের ১৮ অক্টোবর দিনে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের বাড়িতে ( বর্তমান বঙ্গবন্ধু জাদুঘর ) ঐতিহাসিক স্মৃতিবিজড়িত বঙ্গবন্ধু ভবনে শেখ রাসেল জন্মগ্রহণ করেন।

শেখ রাসেলের ছোটবেলা

শেখ রাসেল ছোটবেলা থেকেই ছিলেন খুব শান্তশিষ্ট এবং সুন্দর মনের একজন মানুষ। শেখ রাসেল ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুল ও কলেজের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন।

ছোটবেলা থেকেই শেখ রাসেল দেখেছেন তার পিতা তৎকালীন স্বৈরাচারী পাকিস্তানি শাসক গোষ্ঠীর বর্বরতা স্বীকার হয়ে বারবার জেলখানায় থাকতেন। তাই শেখ রাসেল এতটাই নম্র ভদ্র ছিলেন যে কারাগারকে বলতেন আব্বার বাড়ি।

শেখ রাসেল হত্যাকাণ্ডঃ

শেখ রাসেল (১৮ অক্টোবর ১৯৬৪ – ১৫ আগস্ট ১৯৭৫) বাংলাদেশের রাজনৈতিক নেতা শেষ মুজিবুর রহমানের সর্বকনিষ্ঠ পুত্র। ১৯৭৫ সালের সেনা অভ্যুত্থানে শেখ মুজিবকে হত্যার সময় সপরিবারে তাকেও হত্যা করা হয়।

শেখ রাসেল তাঁর পিতা-মাতা, ভাইবোন ও পরিবারের সাথে মাত্র দশটি বছরের জীবন কাটিয়েছিল, তাঁর স্বপ্ন-আশা-আকাঙ্খা সব কিছুকে ’৭৫ এর খুনীরা নির্মমভাবে হত্যা করেছিল।

খুনিরা এতটাই নির্মম ছিল যে মাত্র ১০ বছরের শিশু সন্তানকেও তারা পৃথিবীতে বেঁচে থাকার সুযোগ দেয়নি।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট প্রত্যূষে একদল তরুণ সেনা কর্মকর্তা ট্যাঙ্ক দিয়ে শেখ মুজিবুর রহমানের ধানমণ্ডিস্থ ৩২ নম্বর বাসভবন ঘিরে ফেলে শেখ মুজিব, তার পরিবার এবং তার ব্যক্তিগত কর্মচারীদের সাথে শেখ রাসেলকেও হত্যা করা হয়।

শেখ মুজিবের নির্দেশে রাসেলকে নিয়ে পালানোর সময় ব্যক্তিগত কর্মচারীসহ রাসেলকে অভ্যুত্থানকারীরা আটক করে। আতঙ্কিত হয়ে শিশু রাসেল কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেছিলেন, “আমি মায়ের কাছে যাব”।

ব্যক্তিগত কর্মচারী এএফএম মহিতুল ইসলামের ভাষ্যমতে, পরবর্তীতে মায়ের লাশ দেখার পর অশ্রুসিক্ত কণ্ঠে মিনতি করেছিলেন “আমাকে হাসু আপার (শেখ হাসিনা) কাছে পাঠিয়ে দাও”।

“রাসেল দৌড়ে এসে আমাকে জাপটে ধরে। আমাকে বললো, ভাইয়া আমাকে মারবে না তো? ওর সে কণ্ঠ শুনে আমার চোখ ফেটে পানি এসেছিল।

এক ঘাতক এসে আমাকে রাইফেলের বাট দিয়ে ভীষণ মারলো। আমাকে মারতে দেখে রাসেল আমাকে ছেড়ে দিল। ও (শেখ রাসেল) কান্নাকাটি করছিল যে ‘আমি মায়ের কাছে যাব, আমি মায়ের কাছে যাব’।

এক ঘাতক এসে ওকে বললো, ‘চল তোর মায়ের কাছে দিয়ে আসি’। বিশ্বাস করতে পারিনি যে ঘাতকরা এতো নির্মমভাবে ছোট্ট সে শিশুটাকেও হত্যা করবে।

রাসেলকে ভিতরে নিয়ে গেল এবং তারপর ব্রাশ ফায়ার। অবশ্য তাদের লক্ষ্য ছিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পূর্ণাঙ্গ পরিবারকে শেষ করে দেওয়া।

শেখ রাসেল দিবস কত তারিখ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিন ১৮ অক্টোবর, ১৯৬৪ সালের এই দিনে জাতির পিতার স্মৃতিবিজড়িত ধানমন্ডির ঐতিহাসিক ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু ভবনে জন্ম নেন শেখ রাসেল। বাংলাদেশ সরকার কবে ১৮ অক্টোবর তারিখে শেখ রাসেল দিবস হিসেবে ঘোষণা করেন।

শেখ রাসেল দিবস নিয়ে কবিতা

ঘাতকের নির্মমগুলির আঘাতে চটপটে দেহটি লুটিয়ে পড়েছিল নিমিষেই। স্বপ্নগুলো ভেঙ্গে গিয়েছিল অল্প সময়ের মধ্যেই।

শেখ রাসেলের স্বপ্ন পিপাসু দুটি মায়া ভরা চোখে নিমিষেই নেমে এসেছিল নিমগ্ন ঘুমের ঘোর। বঙ্গবন্ধুর সর্বকনিষ্ঠ সন্তান শেখ রাসেল যেদিন বঙ্গবন্ধুর ঘর আলো করে পৃথিবীর মাটিতে পা রাখল সেদিন সমগ্র বাংলাদেশে যেন এক আনন্দের বন্যা বয়ে গেল।

এই আনন্দের ধারাবাহিকতা স্মরণ রাখতে নানান কবি রচনা করে গেছেন নানান কবিতা। আপনাদের সামনে শেখ রাসেলকে নিয়ে রচিত দুটি ছোট কবিতা তুলে ধরলাম-

শুভ হোক তুমার জন্মদিন

লেখক – সংগৃহীত

পাখির মত উড়ত সে যে
ফুলের মত হাসতো
কবুতরের সঙ্গি হয়ে
খুসির দেশে ভাসত।
হঠাৎ করে একটি কালো
রাত্রি এলো নেমে
ঘাতক নিল জীবন কেড়ে
স্বপ্ন গেল থেমে।
পঁচাত্তুরের আগষ্ট মাসে
নেকড়ে গুলোর দল
ছিড়লো সোনার জীবন প্রদীপ
বন্দুকেরই নল।
সে খানেতে একটি
ছিল ছোট্র শিশু হায়
পরিবারের সবার সাথে
জীবন গেল তার।
বড় হয়ে সেই ছেলেটি
দেশ কাঁপাতো ঠিক
তাকেও তারা মারলো যেন
হয়ে দিক বেদিক।
রাশেল নামের সেই ছেলেটি
স্বপ্ন বুকে বাঁচে
রাসেল আছে গান কবিতায়
লাল সবুজের মাঝে।

শেখ রাসেল দিবস এর কবিতা ? লেখক – সংগৃহীত

আজ দিনটা অনেক খুশির মেঘ আদরে বূনা।
এমন দিনে জন্মেছিলো ছোট রাসেল সোনা
বাবার আদর মায়ের চুমু বুবুর ভালোবাসা
রাসেল ছিল স্বপ্নবালক সবার মনের আশা
পায়রা প্রেমে কাটতো সকাল-দুপুরে বল খেলা
বিকেলেতে লাল সাইকেল গড়িয়ে যেতে বেলা
সবার আদর সবার স্নেহ সবার ভালোবাসা
থাকতো ভরে উচ্ছ্বাসে ৩২ এর বাসা।
হঠাৎ একদিন মধ্যরাতে থমকে যায় সব
৩২ এর ছোট্র পাঁখি আর করে না রব।
এই বাংলার মাঠে ঘাটে স্কুলেতে রোজ
আজও বুবুর দু-চোখ করে রাসেল সোনার খোঁজ
স্বর্গ থেকেও রাসেল যেন বুবুর সাথে থাকে
কচিঁ শিশুর হৃদয় জুড়ে স্বপ্ন ছবি আঁকে
রাসেলের পাখির জন্মদিনে গান কবিতার ভিড়ে
রাসেল থাকুক অমর হয়ে মনের গহীন নীরে।

পরিশেষে বললাম:

শেখ রাসেল দিবস কবে এবং ২০২৩ শেখ রাসেল দিবসের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় কি এই সম্পর্কে আপনারা বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। আপনার আরও জানতে পেরেছেন শেখ রাসেলের জন্মদিন কবে? আরো তথ্য পেতে আমাদের সাথে থাকুন। ধন্যবাদ।

Rate this post

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button