Day

জাতীয় শিশু দিবস কবে পালিত হয়?

শিশুদের বরাবরই বলা হয় জাতির ভবিষ্যৎ। জাতীয় শিশু দিবস কবে পালিত হয়? শিশুকে যদি তার মৌলিক চাহিদা গুলো পূরণ করে তাকে সঠিক শিক্ষা দেয়া হয় তবে অবশ্যই সেই শিশুটি জাতির জন্য একটি সম্পদ হিসেবে গড়ে উঠবে। তবে এক্ষেত্রে অবশ্যই শিশুটির সঠিক শিক্ষা, সঠিক যত্ন সকল কিছুই নিশ্চিত করতে হয়। পাঠক আপনি আমাদের এই লেখার মাধ্যমে জানতে পারবেন জাতীয় শিশু দিবস কবে পালিত হয়, কবে থেকে জাতীয় শিশু দিবস চালু হয়েছে, কত তারিখে জাতীয় শিশু দিবস, জাতীয় শিশু দিবসের গুরুত্ব ইত্যাদি বিষয় গুলো সহজেই জানবেন।

জাতীয় শিশু দিবস কবে পালিত হয়

  • শিশুর বেড়ে উঠা থেকে শুরু করে তাকে সঠিক শিক্ষা দান করে একজন সঠিক নাগরিক করে গড়ে তোলা সকল কিছুই যেনো এক দুর্গম পথ। কারণ সঠিক শিক্ষা এবং সঠিক ভাবে যদি তাদের গড়ে তোলা না যায় তবে জাতির জন্য সে কেবলই হয়ে উঠবে বোঝা। যা একটা জাতির জন্য মোটেই গৌরবের বিষয় নয়। আর তাই একটি শিশুর সকল মৌলিক চাহিদা পূরণ করার পাশাপাশি তাকে সঠিক ভাবে গড়ে তোলা কম বেশি আমাদের প্রায় সকলের দায়িত্ব।
  • আর সেসব দায়িত্ব পূরণের লক্ষ্যে প্রতি বছর পালন করা হয় “জাতীয় শিশু দিবস।” গুরুত্বপূর্ণ এই শিশু দিবস পালন করা হয় প্রতি বছর ১৭-ই মার্চ। শিশুদের সঠিক বিকাশ নিশ্চিত করার লক্ষ্যেই পালন করা হয় জাতীয় শিশু দিবস।
  • জাতীয় শিশু দিবস অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি দিন। এই দিনটিতে শিশুদের সকল মৌলিক চাহিদা গুলো নিয়ে বিভিন্ন আলোচনা সভার মাধ্যমে আলোচনা করা হয়। শিশুদের সঠিক বিকাশ নিশ্চিত করাই এই আলোচনা সভার মূল উদ্দেশ্য।

১৭ মার্চ যেভাবে শিশু দিবস হয়েছেঃ

২৫ ডিসেম্বর ১৯৯৫ সাল, শিশু সংগঠন বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার আয়োজন করা হয়। উক্ত আয়োজনে দেশের অন্যতম শিক্ষাবিদ ড. নীলিমা ইব্রাহিম ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনকে জাতীয় শিশু দিবস পালনের ঘোষণা দেওয়ার প্রস্তাব রাখেন।

তখন সেখানে প্রধান অতিথি ছিলেন তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রি শেখ হাসিনা। তিনি পরবর্তীতে সরকারের আসনে আসার পর ১৯৯৬ সালে ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনকে সরকারিভাবে জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়। সেই দিন থেকে জাতীয় শিশু দিবস কবে পালিত হয় ১৭ মার্চ।

জাতীয় শিশু দিবস সঠিকভাবে পালন শুরু হয় ১৯৯৭ সালের ১৭ মার্চ থেকে। এই দিন সাধারণ ছুটি থাকে। তবে সরকারি ছুতির ধারা ‘খ’ অনুযায়ী এই দিন সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সকল প্রতিষ্ঠানে জাতীয় ভাবে এই দিবস নানান কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে পালন করতে হয়। শুধু মাত্র সকল প্রতিষ্ঠানের স্বাভাবিক কার্যক্রম বন্ধ থাকে। জাতীয় শিশু দিবস কবে পালিত হয় ?

শিশু দিবস টি পালন করা হয় মূলত যারা সদ্য নবজাতক থেকে শুরু করে পনের বছর পর্যন্ত বয়স সেসকল ছেলে ও মেয়ের জন্য। কারণ এরাই জাতির ভবিষ্যৎ। আর এই জাতির ভবিষ্যৎ যেনো নষ্ট না হয় এবং তাদের সুরক্ষার জন্যই জাতীয় শিশু দিবস পালন করা হয়।

১৭ মার্চ জাতীয় শিশু দিবস পালন করা হয় কেনঃ

১৭ মার্চ যে শুধু জাতীয় শিশু দিবস তা নয়। এই দিনটিতে জন্ম নিয়েছেন আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধ শেখ মুজিবর রহমান। যিনি কিনা বাংলার ইতিহাসে একজনই। তার যায়গা কেউ দখল করে নিতে পারবে না। তার অবদানেই আমরা পেয়েছি আমাদের মাতৃভাষা বাংলা বলার স্বাধীনতা। আর এই মহান ব্যক্তির জন্মদিন কে ঘিরেই ১৭ মার্চ পালন করা হয় জাতীয় শিশু দিবস।

জাতীয় শিশু দিবস কবে পালিত হয় এবং কেনো ঘোষণা করা হয়?

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মদিন ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ। এই দিনটিতে আরো পালন করা হয় শিশু দিবস। শিশুদের প্রতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান এর ভালোবাসা ছিল অসীম। তিনি সব সময় ভাবতেন শিশুরাই জাতির হাল ধরবে। তাদের হাতেই দেশের ভবিষ্যৎ। তিনি শিশুদের অত্যাধিক স্নেহ করতেন।

আর তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর নেতৃত্বাধীনে (১৯৯৬-২০০১) খ শ্রেণিভুক্ত দিবস হিসেবে প্রথম শিশু দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয় ১৭ মার্চ কে। প্রথম প্রথম এই দিনটিকে সাধারণ ছুটি হিসেবে ঘোষণা করা না হলেও বর্তমানে এই দিনটিকে সাধারণ ছুটি হিসেবে ঘোষণা এবং পালন দুটিই করা হয়।

জাতীয় শিশু দিবস উদযাপনঃ

উপলক্ষ্যে সারাদেশ ব্যাপী পালন করা হবে বিভিন্ন রকম কর্মসূচী। করোনার কারণে যদিও গত দুবছর যাবত তেমন কিছু করার সুযোগ হয়নি। তবে এবার ১৭ মার্চ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়ায় শেখ মুজিবর রহমান এর সমাধিতে ফুল অর্পণ করা হবে। পাশাপাশি উনারা তাদের বাণী উপস্থাপন করবেন।

বাংলাদেশের শিশু দিবস কত তারিখঃ

বাংলাদেশে শিশু দিবস গভীর তাৎপর্যের সাথে পালন করা হয়। পূর্বে বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক শিশু দিবস পালন করা হলেও ১৯৯৬ সাল থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের জন্মদিন ১৭ মার্চ জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে উদযাপন করা হয়।

বাংলাদেশের শিশু দিবস সারাবিশ্বেই শিশুদের জন্যে একটি দিনকে (National children’s day bangladesh) বিশেষভাবে উদযাপনের জন্যে শিশু দিবস পালন করা হয়ে থাকে । বিশ্ব শিশু দিবস আর আন্তর্জাতিক শিশু দিবস আলাদা ভাবে পালন করা হয়ে থাকে। বিশ্ব শিশু দিবস ২০ শে নভেম্বর ও আন্তর্জাতিক শিশু দিবস ১ লা জুন পালিত হয়ে থাকে।

১৭ই মার্চ বা জাতীয় শিশু দিবস নিয়ে কবিতা লিখেছেন কবি সামিয়া আক্তর যা নিচে তুলে ধরা হয়েছেঃ-

শিশু দিবস

কবি সামিয়া আক্তার

সতেরো মার্চ শিশু দিবস
যত্নে তাদের রাখি—
আদম হাওয়ার ধরায় তারা
কিচিরমিচির —পাখি।

ফুল বাগানে ফুল যে ছাড়া
দেখায় যেমন শূন্য—-
শিশুবিহীন ঘরটা তাই তো
হয় না পরিপূর্ণ।

শিশু দিবস হোক না পালন
শৈশব রঙিন করে—
পথশিশু শব্দটি মুছে
থাকুক আপন—ঘরে।

সুন্দর সমাজ গড়তে হলে
দিতে হবে শিক্ষা—
আজকের শিশু আগামীতে
দেশকে দিবে—দীক্ষা।

শিক্ষার আলোয় প্রতিটি শিশু
হবে জাতির দিশা—
তাঁদের ছোঁয়ায় কাটবে সকল
কালো অমানিশা।।

জাতীয় শিশু দিবস কবে পালিত হয় তা নিয়ে আরও একটি কবিতা লিখেছেন সেখ আব্দুল মান্নন-

শিশু দিবস

সেখ আব্দুল মান্নান

শিশু মানে মনে পড়ে

নানা কিসিম ফুল

শিশু মানেই অজান্তেতে

করে নানা ভুল।

শিশুর নামেই হচ্ছে পালন

মধুর মহান দিন

সব শিশুদের বাজছে মনে

মন মাতানো বীণ।

নানা রকম পোশাক পরে

যাবে তারা স্কুলে

শিক্ষা গুরুকে করবে বরণ

রং বেরঙের ফুলে।

শিশু দিবস মানে চাচা নেহরু

সব শিশুদের প্রিয়

নানা খুশির মাঝে সে

আজ হবে বরণীয়।

 

আমাদের শেষ কথাঃ

এই দিনটি শিশুদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বঙ্গবন্ধু শেখ শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মদিন কে ঘিরে এমন উদ্যোগ নেয়া সত্যিই যেনো এক অনবদ্য উপস্থাপন। শিশুদের শিক্ষা, সুরক্ষা সকল কিছুকে ঘিরে এই দিনটি প্রতি বছর উদযাপন করার মাধ্যমে দেশের এবং জাতির উন্নয়ন সাধন করার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

5/5 - (1 vote)

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button